এই সুন্নিপিডিয়া ওয়েবসাইট পরিচালনা ও উন্নয়নে আল্লাহর ওয়াস্তে দান করুন
বিকাশ নম্বর ০১৯৬০০৮৮২৩৪

ঈদে মিলাদুন্নবী (সঃ) * কারবালার ইতিহাস * পিস টিভি * মিলাদ * মাযহাব * ইলমে গায়েব * প্রশ্ন করুন

বই ডাউনলোড

আহলে বায়তের প্রশংসা ও মর্যাদা

From Sunnipedia
Jump to: navigation, search

হুযূর সাল্লাল্লাহু তা’আলা আলায়হি ওয়া সাল্লাম যখন আহলে বায়ত তথা হাসানাইন করীমাইন, হযরত আলী ও হযরতে ফাতেমা রাদ্বিয়াল্লাহু তা’আলা আনহুমকে নিয়ে নাসারাদের সাথে মোবাহালার জন্য আসলেন, তখন তাদের বড় পাদ্রী আবদুল মসীহ বললেন-

আমি এমন কতেক চেহারা দেখছি যদি তাঁরা আল্লাহর কাছে কোন পাহাড়কে এর স্থান থেকে সরিয়ে দিতে চান তাহলে তিনি (আল্লাহ্) তা সরিয়ে দেবেন।

— খুতবাতে মুহররম পৃষ্ঠা-২২৮

হযরত যায়েদ বিন আরকাম রাদ্বিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত, তিনি বলেছেন, একবার রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু তা‘আলা আলায়হি ওয়া সাল্লাম মক্কা-মদীনার মাঝখানে খুম্মা নামক স্থানে আমাদের মাঝে বক্তব্য দানকারী হয়ে দাঁড়ালেন প্রথমে তিনি আল্লাহর প্রশংসা করলেন এবং উপদেশ ও স্মরণ করিয়ে দিলেন অতঃপর বললেন,সুতরাং এর পর হে মানবমন্ডলী তোমরা শোন, নিশ্চয় আমি এক জন মানব। আমার প্রভুর দূত আমার কাছে আসা নিকটবর্তী। ফলে আমি সাড়া দেব।আর আমি তোমাদের মধ্যে দু’টি জিনিস রেখে যাচ্ছি। প্রথমটি আল্লাহর কিতাব এর মধ্যে আয়াত ও নূর রয়েছে। সুতরাং তোমরা আল্লাহর কিতাবকে গ্রহণ কর ও একে আকঁড়ে ধর। অতএব আল্লাহর কিতাবের উপর উৎসাহ প্রদান করলেন এবং এটার ব্যাপারে প্রেরণা দিলেন। এরপর বললেন - দ্বিতীয়টি হল আমার আহলে বায়ত। আমি তোমাদেরকে আমার আহলে বায়তের ব্যাপারে আল্লাহকে স্মরণ করিয়ে দিচ্ছি, আমি তোমাদেরকেআমার আহলে বায়তের ব্যাপারে আল্লাহকে স্মরণ করিয়ে দিচ্ছি।

— মিশকাতুল মাসাবীহ, পৃষ্ঠা -৫৬৮

হযরত জাবের রাদ্বিয়াল্লাহু তা’আলা আনহু হতে বর্ণিত, তিনি বলেছেন, আমি রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু তা’আলা আলায়হি ওয়া সাল্লামকে তাঁর হজের সময় আরফার দিন খুতবা প্রদান করতে দেখলাম। এমতাবস্থায় তিনি তাঁর কছওয়া নামক উটনির উপর। সুতরাং তাঁকে আমি বলতে শুনলাম-অর্থাৎ হে মানবমন্ডলী! আমি তোমাদের মধ্যে যে জিনিস রেখে যাচ্ছি যদি তোমরা তা আঁকড়ে ধরে থাক তাহলে পথভ্রষ্ট হবে না। একটি আল্লাহর কিতাব। আর অপরটি আমার বংশধর আমার আহলে বায়ত।

— তিরমিযি, মিশকাত পৃষ্ঠা -৫৬৯

তররানী শরীফে আছে, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু তা‘আলা আলায়হি ওয়া সাল্লাম বলেন-

কোন বান্দা পূর্ণ ঈমানদার হবে না, যতক্ষণ আমাকে তাঁর নিজের প্রাণের চেয়ে, আমার আওলাদকে নিজের আওলাদের চেয়ে,আমার আহলে বায়তকে নিজের আহল (পরিবার-পরিজন) থেকে এবং আমার সত্তাকে নিজের সত্তা থেকে অধিক ভালোবাসবে না।

— আশশারফুল মুয়ায়্য়দ, পৃষ্ঠা-৮৯, খুতবাতে মুহররম পৃষ্ঠা -২৩৩

ইমাম আহমদ রাহমাতুল্লাহি আলায়হি বর্ণনা করেছেন,

নবীজী সাল্লাল্লাহু তা’আলা আলায়হি ওয়া সাল্লাম ইমাম হাসান ও ইমাম হোসাইন রাদ্বিয়াল্লাহু তা’আলা আনহুমার হাত ধরলেন এবং বললেন-যে আমাকে ভালোবাসে, এ দু’জনকে ভালোবাসে, তাদের মা এবং তাঁদের বাবাকে ভালোবাসে সে কিয়ামতের দিন আমার সাথে আমার স্তরে হবে।।

— আশরাফুল মুয়ায্যদ, পৃষ্ঠা-৮৬, খুতবাতে মুহররম-২৩৪

হযরত আবু জর রাদ্বিয়াল্লাহু তা‘আলা আনহু কা’বা ঘরের দরজা ধরে বললেন, আমি রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু তা‘আলা আলায়হি ওয়া সাল্লামকে বলতে শুনেছি - সাবধান হয়ে যাও যে, আমার আহলে বায়ত তোমাদের জন্যে নূহ আলায়হিস সালামের কিসতির (নৌকা) মতো, যে ব্যক্তি এতে (কিশতিতে) আরোহণকরেছিল সে নাজাত পেয়েছিল। আর যে ব্যক্তি আরোহণকরা হতে বিরত রয়েছিল সে ধ্বংস হয়েছিল।

— মিশকাতুল মাসাবীহ, পৃষ্ঠা-৫৭৩

হযরত ওমর ফারুক রাদ্বিয়াল্লাহু তা’আলা আনহু বর্ণনা করেছেন, নিশ্চয় নবী করীম সাল্লাল্লাহু তা’আলা আলায়হি ওয়া সাল্লাম বলেন-মুফতি জালালুদ্দীন আহমদ আমজাদী ‘খুতবাতে মুহররম’ কিতাবের মধ্যে বলেন, সহীহ হাদীসের মধ্যে রয়েছে যেমন আহলে সুনানের অনেকে বর্ণনা করেছেন যখন আবু লাহাবের মেয়ে মদীনা মুনাওয়ারায় হিজরত করে আসলেন, তখন কোন কোন লোক বলতে লাগল তোমার হিজরত তোমার কোন কাজে আসবে না। কেননা তুমি জাহান্নামের ইন্ধনের মেয়ে। তখন তিনি (আবু লাহাবের মেয়ে) এটা রাসূলে করীম সাল্লাল্লাহু তা‘আলা আলায়হি ওয়া সাল্লামকে বললেন। তখন তিনি (রাসূলে পাক) অত্যন্ত অসন্তুষ্ট হলেন এবং মিম্বরের উপর দাঁড়িয়ে ঘোষণা দিলেন লোকদের কী অবস্থা যারা আমার নসব(বংশধর) এবং আমার আত্মীয়-স্বজনদের ব্যাপারে আমাকে কষ্ট দেয়। খবরদার যে আমার নসব ও আমার আত্মীয়-স্বজনকে কষ্ট দিল সে আমাকেই কষ্টদিল। আর যে আমাকে কষ্ট দিল সে আল্লাহকেই কষ্ট দিল।

— বরকাতে আলে রাসূল,পৃষ্ঠা-২৫৭ এবং খুতবাতে মুহররম, পৃষ্ঠা-২৩৫

তথ্যসূত্র

  • মাসিক তরজুমান, মহররম, ১৪৩৫ হিজরী