এই সুন্নিপিডিয়া ওয়েবসাইট পরিচালনা ও উন্নয়নে আল্লাহর ওয়াস্তে দান করুন
বিকাশ নম্বর ০১৯৬০০৮৮২৩৪

ঈদে মিলাদুন্নবী (সঃ) * কারবালার ইতিহাস * পিস টিভি * মিলাদ * মাযহাব * ইলমে গায়েব * প্রশ্ন করুন

বই ডাউনলোড

ইয়াওমুশ্‌শক (সন্দেহের দিন)

From Sunnipedia
Jump to: navigation, search
  • মাসআলাঃ

(শা’বানের ২৯শে তারিখে যদি রমযানের চাঁদ দেখা যায়, তবে পর দিন রোযা রাখিতে হইবে।) যদি আকাশে মেঘ থাকে এবং চাঁদ দেখা না যায়, তবে দিন রোযা রাখিবে না। হাদীস শরীফে ইয়াওমুশ্‌শক অর্থাৎ এইরূপ সন্দেহের দিনে রোযা রাখার নিষেধ আসিয়াছে। শা’বানের ৩০ দিন পুরা হইলে পর রোযা রাখিবে।

  • মাসআলাঃ

২৯শে শা’বান মেঘের কারনে যদি চাঁদ দেখা না যায়, তবে পর দিন নফল রোযা রাখাও নিষেধ। অবশ্য যদি কাহারও হামেশা বৃহস্পতিবার, শুক্রবার অথবা অন্য কোন নির্দিষ্ট দিনে নফল রোযা রাখার অভ্যাস থাকিয়া থাকে এবং ঘটনাক্রমে ঐ তারিখ ঐ দিন হয়, তবে নফল নিয়াতে রোযা রাখা ভাল। অবশ্য যদি পরে কোথাও হইতে খবর আসে যে, ঐ দিন রমযানের ১লা তারিখ প্রমানিত হইয়াছে, তবে ঐ নফলের দ্বারাই ফরয আদায় হইয়া যাইবে, ক্বাযা করিতে হইবে না।

  • মাসআলাঃ

মেঘের কারনে যদি ২৯শে তারিখে যদি রমযানের চাঁদ দেখা না যায়, তবে দুপুরের ১ ঘন্টা পূর্ব পর্যন্ত কিছুই পানাহার করিবে না। যদি কোথাও হইতে চাঁদের খবর আসে, তবে তখনই রোযার নিয়্যত করিবে, আর যদি খবর পাওয়া না যায়, তবে পানাহার করিবে।

  • মাসআলাঃ

২৯শে শা’বান সন্ধায় যদি চাঁদ দেখা না যায়, তবে পর দিন ক্বাযা রোযা, মান্নতের রোযা, কাফ্‌ফারা রোযা কোন রোযাই দুরুস্ত নহে, মকরুহ। অবশ্য দুরুস্ত না হওয়া স্বত্বেও যদি কেহ রাখে, পরে ঐ দিন রমযানের ১লা তারিখ বলে প্রমানিত হয়, তবে ঐ রোযাতেই রমযানের রোযা আদায় হইয়া যাবে। ক্বাযা, কাফ্‌ফারা অথবা মান্নতের রোযা পরে রাখিতে হইবে। যদি খবর না পাওয়া যায়, তবে যে রোযার নিয়্যত করিয়াছে উহাই আদায় হইবে।

তথ্যসূত্র

  • বেহেস্তী জেওর (লেখকঃ মাওলানা আশরাফ আলী থানবী (রহঃ))