তারা কাফিরদেরকে ছেড়ে দেবে এবং মুসলমানদেরকে হত্যা করবে

From Sunnipedia
Jump to: navigation, search
ওহাবী/সালাফী/আহলে হাদিসদের সম্পর্কে ভবিষ্যদ্বাণী



  • তারা কাফিরদেরকে ছেড়ে দেবে এবং মুসলমানদেরকে হত্যা করবে

হযরত আবূ সা’ঈদ খুদরী (রাঃ) বর্ননা করেছেন-

হজর সাইয়্যেদুনা আলী মুরতাযা শেরে খোদা (রাঃ) সোয়ারে দু’আলম (সঃ) এর মহান দরবারে কিছু স্বর্ণ পাঠালেন । তিনি আক্বরা’ ইবনে হারিস, ওয়ায়নাহ্‌ ইবনে বদর ফুযারী, যায়দ-ই তাই এবং বনী কিলাবের একজন (আলক্বামাহ ইবনে আল্লাশাহ্‌)- এ চারজনের দলে বণ্টন করে দিলেন । তখন কোরাইশ ও আনসার নারায হলেন । তারা বলতে লাগলেন, “হুযুর নজদীদের সরদারদের মধ্যে (স্বর্ণ) বণ্টন করে দিলেন আর আমাদেরকে বাদ দিলেন ।”

রসূল করীম (সঃ) এরশাদ করলেন, “আমি নজদীদের সরদারদেরকে তাঁদের হৃদয়গুলোকে আকৃষ্ট করার জন্য দিয়েছি।”

হুযুরের সামনে গভীর চক্ষুযুগল বিশিষ্ট, উঁচু উঁচু আব্রুধারী, উঁচু কপাল বিশিষ্ট, ঘন দাড়িওয়ালা, মাথা ন্যাড়াকৃত এক ব্যক্তি আসলো । আর বলতে লাগলো, “হে মুহাম্মাদ (সঃ) আল্লাহকে ভয় করুন ।”

নবী পাক (সঃ) এরশাদ করলেন, “যদি আমি আল্লাহ্‌ তা’আলার নির্দেশ অমান্য করি, তবে কে তার নির্দেশের আনুগত্য করবে ? আল্লাহ্‌ তা’আলা পৃথিবীর উপর আমাকে আমীন (বিশ্বস্ত) বানিয়ে প্রেরণ করেছেন ।

এক ব্যক্তি তাঁকে (ঐ ব্যক্তিকে) কতল করার অনুমতি চেয়ে আরয করলেন । বর্ননাকারীর ধারনা হচ্ছে তিনি ছিলেন, হযরত খালেদ ইবনে ওয়ালীদ (রাঃ) । তখন রসূলে করীম (সঃ) তাঁকে হত্যা করা থেকে রুখে দিলেন । যখন ঐ ব্যক্তি চলে গেল, তখন তিনি এরশাদ করলেন, নিশ্চয় তার বংশ (ঔরস) থেকে কিংবা তার পরে এমন এক সম্প্রদায়ের জন্ম হবে, যারা কোরআন পাক পড়বে; কিন্তু কোরআন পাক তাঁদের কন্ঠনালীগুলোর নিচে নামবে না । তারা দ্বীন থেকে বের হয়ে যাবে, যেভাবে তীর শিকারের দেহ ভেদ করে বের হয়ে যায় । তারা মুসলমানদেরকে হত্যা করবে কিন্তু বোত পূজারীদেরকে ছেড়ে দেবে । যদি আমি তাঁদেরকে (আমার যুগে) পেয়ে যাই, তবে তাঁদেরকে অবশ্যই কতল করবো, ‘আদ সম্প্রদায়কে হত্যার মতো’ ।

— সহীহ বোখারী শরীফ, ১ম খন্ড, পৃঃ ৪৭১, মিশকাত শরীফ, মাযাহিরে হক্ব, হাশিয়ায়ে কিতাবুল মিলাল ওয়ান নাহল পৃঃ ১১৬

মাওলানা মুহাম্মদ আলী জাওহার, মাওলানা শওকত আলী, যোফর আলী খান এবং সুলায়মান নদভী প্রমুখ সহ খিলাফত আন্দোলনের প্রতিনিধি দল ১৯২৬ খৃষ্টাব্দে তার যে রিপোর্ট প্রকাশ করেছে তাতে তার স্পষ্ট ভাষায় লিখেছেন-

নজদ-সম্প্রদায়কে এক শতাব্দী থেকেও বেশি সসময় যাবত শেখানো হয়েছে যে, তারা ব্যতীত সব মুসলমান মুশরিক । আর নজদীদের পূর্ববর্তী (বিগত) শতাব্দির ইতিহাসেও একথা বলছে যে, তাঁদের হাত কাফিরদের রক্তে কখনও রঞ্জিত হয়নি । যে পরিমাণ রক্তপাত তারা ঘটিয়েছে তা শুধু মুসলমানদেরই ঘটিয়েছে ।

— মাসআলায়ে হিযাজ, রিপোর্ট, খিলাফত প্রতিনিধি দল, ১৯২৬ খৃঃ পৃঃ ১০৫

তথ্যসূত্র

  • ওহাবী মাযহাবের হাক্বীক্বত (লেখকঃ মাওলানা আবুল হামিদ মুহাম্মদ যিয়াউল্লাহ ক্বাদেরী)